cmd (Command Prompt) বাংলা টিটোরিয়াল । (পর্ব এক)

Najmul Amin
May 20, 2017 · 5 min read

cmd কি : cmd এর পূর্নরুপ হল Command (Command Prompt). cmd হল উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের জন্য কমান্ড লাইন ইন্টারপ্রেটার ।

উইন্ডোজে আপনি গ্রাফিকাল ইন্টারফেস ব্যাবহার করে যেসব Default কাজ করতে পারবেন আপনি চাইলে প্রায় সকল কাজই কমান্ড লাইন ব্যাবহার করে করতে পারবেন । যদিও এটা লিনাক্স টামির্নালের মত অতটা শক্তিশালী না তবুও আপনি অনেক কাজই এর মাধ্যমে করতে পারবেন । আপনি যদি এডভান্স কাজ করতে চান তাহলে Windows Power Shell ব্যাবহার করতে পারেন । তবে এই সিরিজে আমি cmd নিয়ে আলোচনা করব ।

cmd ওপেন করা : আপনি চাইলে স্টার্ট মেনু থেকে cmd লিখে সার্চ দিয়ে cmd ওপেন করতে পারেন অথবা Windows + R কি চাপলে Run ওপেন হবে এবং ‍এখানে cmd লিখে এন্টার প্রেস করলে cmd ওপেন হবে

cmd

echo : ইকো কমান্ড মূলত কোন কিছু প্রিন্ট করতে ব্যাবহার হয় । যেমন echo najmul লেখে ইন্টার দাও তাহলে এটি najmul প্রিন্ট করবে ।

systeminfo : তোমার পিসির সকল কনফিগারেশন দেখতে এই কমান্ডটি ব্যাবহৃত হয় । যেমন উইন্ডোজ নেম , ভার্সন , বায়োস ভার্সন , র‌্যাম , প্রসেসর ইত্যাদি ।

হেল্প মেনু : আমরা চাইলে যেকোন কমান্ড এর হেল্প মেনু থেকে দেখে নিতে পারব যে এটি কিভাবে কাজ করে । হেল্প মেনুর কমান্ড হল attrib /? এখানে ‍attrib এর স্থলে যেকোন কমান্ড বসাইতে হবে । যেমন আমরা যদি cd এর হেল্প মেনু দেখতে চাই তাহলে আমাদের টাইপ করতে হবে cd /? তাহলে আমরা cd এর হেল্প মেনু দেখতে পারব এবং এই কমান্ড কিভাবে কাজ করে তাও দেখতে পারব ।

তাই যে কোন কমান্ড সম্পর্কে না জানলে এই হেল্প কমান্ড এর মাধ্যমে তা বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাবে।

cd : cd কমান্ডটি পূর্নরুপ হল Change Directory. তুমি যদি শুধু cd লিখে এন্টার চাপ তাহলে এটি তোমাকে তোমার কারেন্ট ডাইরেক্টরী দেখাবে । তুমি যদি Root ডাইরেক্টরীতে যদি যেতে চাও তাহলে cd/ কমান্ড প্রেস করে এন্টার চাপ তাহলে তোমাকে রুট ডাইরেক্টরীতে নিয়ে যাবে ।

পূর্ববতী ডাইরেক্টরী : cd .. ডেস্কটপ এ যাওয়া : cd Desktop

cls : cls কমান্ডটি মূলত কমান্ড লাইনের সকল লেখা মুছতে ব্যাবহৃত হয় ।

exit : exit কমান্ড টি cmd প্রোগ্রামটি ক্লোজ করতে ব্যাবহৃত হয় । এটি লিখে এন্টার প্রেস করলে cmd উইন্ডেটি বন্ধ হয়ে যাবে ।

dir : যেকোন ডাইরেক্টরীর সকল ফোল্ডার এবং ফাইল এর লিস্ট দেখতে dir কমান্ডটি ব্যবহৃত হয় ।

dir

mkdir : mkdir এর পূর্নরুপ হল make directory . এর মাধ্যমে আমরা নুতুন ফোল্ডার তৈরী করতে পারি । যেমন mkdir najmul লিখে এন্টার প্রেস করলে একটি নুতুন ফোল্ডার তৈরী হবে ।

mkdir

rmdir : এই কমান্ড দ্বার ফাকা যেকোন ফোল্ডার ডিলিট করা হয় । কিন্তু ওই ফোল্ডারের ভিতর যদি কোন ফাইল থাকে তাহলে কিছুই হবে না । এজন্য rmdir /s কমান্ডটি ব্যাবহার করতে হবে ।

যেমন rmdir najmul কমান্ড ব্যাবহার করলে শুধু najmul নামক ফোল্ডারটি ডিলিট হয়ে যাবে কিন্তু যদি এই ফোল্ডারে কোন অন্য ফাইল থাকে তাহলে rmdir /s কমান্ড ব্যাবহার করতে হবে ।

কোন নিদৃষ্ট ড্রাইভে যেতে : তুমি যদি কোন নিদৃষ্ট ড্রাইভ যেমন C কিংবা D ড্রাইভে যেতে চাও তাহলে তোমাকে কমান্ড দিতে হবে ,

C: সি ড্রাইভ এর জন্য

D: ডি ড্রাইভ এর জন্য

D:

এভাবে তুমি যেকোন ড্রাইভে যেতে পার ।

এবার একটিু এডভান্স লেভেলে যাওয়া যাক , তো তুমি যদি কোন স্পেশিফিক ডাইরেক্টরিতে যেতে চাও যেমন আমি c>program files ডাইরেক্টরীতে যেতে চাই । তাহলে আমাকে টাইপ করতে হবে cd c:/Program Files

cd c:/Program Files

কিন্তু এটি তখনই কাজ করবে যখন তুমি c ড্রাইভে থাকবে । যদি না থাক তবে যখন তুমি c ড্রাইভ এ যাবে তোমাকে c>program files ডাইরেক্টরী তে নিয়ে যাবে।

কথাটা একটা উদাহরন দিয়ে বোঝানো যাক ,

উপররে চিত্রে দেখা যাচ্ছে যে আমি আমার d ড্রাইভ এর audio ফোল্ডারে যেতে চাই তাই আমি কমান্ড দিয়েছি cd d:/audio কিন্তু এটি ‍আমাকে d>aduio ফোল্ডারে নিয়ে যায় নি । কেননা আমি এখন c ড্রাইভ এ আছি । কিন্তু আমি যখন কমান্ড দিলাম d: তখন এটি আমাকে সরারসি d>aduio ফোল্ডারে নিয়ে গেল।

এখানে ফোল্ডার নেমগুলো কেস সেনসেটিভ । তাই সঠিক নাম ব্যাবহার করতে হবে ।

যদি একধিক ফোল্ডারে কিংবা ফোল্ডার এর নামের মাঝে যদি স্পেস থাকে তাহলে আমরা কোটেশন মার্ক ব্যাবহার করতে পারি ।

দ্রুত লেখার জন্য আমরা Tab বাটন ব্যাবহার করতে পারি । যেমন আমরা উপরের চিত্রের মত c>Program Files ফোল্ডারে যেতে চাই । তো আমরা কমান্ড দিব ,

cd c:/pr (tab)

এখানে cd c:/pr লেখার পর tab চাপতে হবে । তাহলে এটি অটোমেটিকলি cd c:/”Program Files” লিখে নিবে এবং এন্টার চাপলে তোমাকে ওই ডাইরেক্টরীতে নিয়ে যাবে ।

tree : কমান্ডটি মূলত যেকোন ফোল্ডার এর স্ট্রাকচার দেখতে ব্যাবহৃত হয় ।

tree

কালার চেন্জ করা : আমরা চাইলে cmd উইন্ডোর ব্যাকগ্রাউন্ড কিংবা ফন্ট কালার চেন্জ করতে পারব । পুরো বিষয়ের একটা ওভারভিউ পেতে তুমি color /? কমান্ড দিতে পার । তাহলে তুমি সকল কালারের কালার কোড দেখতে পারবে ।

তো ফন্ট কালার এবং ব্যাকগ্রাউন্ড কালার চেন্জ করার জন্য টাইপ করতে হবে color 24 এখানে 24 হচ্ছে কালার কোড ।প্রথমে যে ভ্যালু থাকবে তা দ্বারা ব্যাকগ্রাউন্ড কালার চেন্জ হবে এবং পরের ভ্যালু ফন্ট কালার চেন্জ হবে । এখানে আমরা প্রথমে 2 ব্যাবহার করেছি এবং পরে 4 ব্যাবহার করেছি । 2 মানে হল সবুজ এবং 4 এর মানে লাল কালার । ডিফল্ট কালারে ফিরে আসতে চাইলে টাইপ কর শুধু color এবং এন্টার দাও তাহলে তুমি ডিফল্ট কালার এ ফিরে আসবে ।

color 4

শুধু একটি কালার কোড ব্যাবহার করলে ফন্ট কালার চেন্জ হবে । উপরে আমি শুধু color 4 ব্যাবহার করেছি । কালার কোড 4 এর রং হল লাল তাই ফন্ট কালার লাল হয়ে গেছে ।

আরও একটি উদাহরন

তো আমরা চাইলে Command Prompt Properties থেকেও কালার এবং ব্যাকগ্রাউন্ড চেন্জ করতে পারব । যেমন ,

সকল ড্রাইভ এর নাম এবং লিস্ট দেখা : আপনার পিসিতে কয়টি ড্রাইভ আছে তা cmd এর মাধ্যমে দেখতে চাইলে টাইপ করুন wmic logicaldisk get name

ipconfig : উইন্ডোজ এর আইপি কনফিগারেশন দেখতে এই কমান্ড ব্যাবহার করা হয় ।

path : উইন্ডোজ এর Environment Variables এ কি কি Path অ্যাড করা আছে তা দেখতে এই কমান্ড ব্যাবহার করা হয় । এটা নিয়ে একটা আলাদা পোষ্ট করার ইচ্ছা আসে ।

    Najmul Amin

    Written by

    ভালবাসি ব্লগ লেখতে এবং প্রেগ্রামিং করতে । ইউটিউবে আমি , https://goo.gl/VSnANo