গরুঃ পশুদের কাঁঠাল (পর্ব ১)

কতটা ভাবি আমরা গরুকে নিয়ে? (এরপর উক্ত সমস্ত চিন্তা ভাবনা এবং মন্তব্য একান্ত আমার।)

একদম ভাবি না। কোরবানি ছাড়া শুধু ডেয়ারি ফার্ম, ঘুঁটে ব্যবসায়ি, কসাই, চামড়া ব্যবসায়ি; সারাজীবন এ চার প্রকার মানুষদের সাথে গরুর দেখা হয়। পাঁচ নম্বর মানুষগুলো এরপর গরুর সাথে কোরবানির সময়ে Hug “কড়ে”, ছবি তুলে, মালা "পড়িয়ে" লং ড্রাইভে নিয়ে যায়। এভাবে কি পশুর প্রতি ভালবাসা জেনারেট করা আদৌ সম্ভব? নাহ, আমার তা মনে হয় না।

বাংলাদেশে এত নদী না থাকলে মাছে ভাতে বাঙালি বলে কিছু থাকত না, মুরগি ভাতে বাঙালি হত সবাই। নাহলে ডিমে ভাতে। আর তাও যদি না হত? তাহলে হত দুধে ভাতে। ভাত আমাদের জাতীয় খাবার। এ ভাত আসে গরু থেকে। গরুকে বলদ এ ট্রান্সফর্ম করে হাল চাষ করা হয় বাঁকা লাঙ্গল দিয়ে। সে চাষ-করা জমিতে ধান হয়, ধান থেকে চাল হয়। অন্তত আমি তাই বিশ্বাস করি। কেউ যদি বলে ভাত আসে পাখি থেকে কারণ পাখি ভাত পাড়ে, আমার তাতে আপত্তি নাই, কিন্তু আমি সেটা বিশ্বাস করি না। সরি। গবাদি পশুদের মধ্যে বাংলাদেশে আলোড়ন সৃষ্টিকারী একটি প্রাণী - উট। উট got nothing on গরু। উটের মাংস যেমনি হোক, এটা আসলে গরু/খাসীকে পিছনে ফেলার জন্য বাংলাদেশে আসে নি। Diversity র জন্য উট এসেছে। Diversity খুব দরকার। এতে মানুষের অন্তর্দৃষ্টি উন্মোচিত হয় দ্রুত। অন্তত সবাই তাই বলে।

গরু কি দেয় না আমাদের? দুধ দেয়, দুধ থেকে দুধ ছাড়া আর সবকিছু তৈরি করা যায় যথাঃ মাখন, দই, মিষ্টি, ইত্যাদি। আমি ইত্যাদি খেয়ে দেখেছি, এটা বেশ খেতে।

গরু মাংস দেয়। মাংস আর কে দেয়? এক মা ছিল যে তার সন্তানকে তাঁর হৃৎপিণ্ড দিয়েছিল যাতে ছেলেটা যে মেয়েটাকে ভালবাসে, তাকে উপহার দিতে পারে। ওই হৃৎপিণ্ড হাতে ছেলেটা যখন দৌড়াচ্ছিল তখন সে হোঁচট খেয়ে পড়ে যায়, হৃৎপিণ্ডটা জিজ্ঞেস করে, "ব্যথা পেয়েছিস বাবা"? আচ্ছা এই গল্প কি সত্যি? My God. হৃৎপিণ্ড হাতে নিয়ে দৌড়ানোর কি আছে? You already killed your Mom, what the fuck are you running away from? It’s not like you have a rainforest to save or something. Gawd!

গরু চামড়া দেয়। চামড়া দিয়ে সবকিছু তৈরি যায় যথাঃ বেল্ট। অনেক অনেক important একটা জিনিস। অনেকে বেল্ট “পড়ে” না। Lucky Bastards. অনেকের বেল্ট লুজ থাকে, এক হাত দিয়ে তারা বেল্ট ধরে থাকে। গরু না থাকলে দুই হাত দিয়ে প্যান্ট ধরে থাকতে হত। সেটা কি সম্ভব? প্যান্ট বেল্টের ওপর নির্ভরশীল, মানুষ প্যান্টের ওপর। প্যান্ট নিঃসন্দেহে মানব সভ্যতার একটা বৈপ্লবিক আবিষ্কার। প্যান্ট যাদের নেই তাদের অনেক দুঃখ। অবশ্য যাদের বেল্ট আছে প্যান্ট নেই তাদের চেয়ে প্যান্টহীনরা সুখী। ওরা বেল্ট "পড়তে" পারলেও তারা প্যান্ট "পড়তে পাড়ে" না। তখন আয়নায় নিজেকে দেখতে "খাড়াপ" লাগে।

গরু গোবর দেয়। গোবর দিয়ে সার হয়। অনেকটা সোনার ডিম পাড়া হাসের মত, আসলে হাঁসটার চেয়েও গরু বেটার কারণ that gold-fucker ain’t real, cow is! গরু জৈবসার বানানোর প্রয়োজনে নিজের খাওয়া কন্ট্রোল করে। আমি কোনও দিন ভাবি নি, "আচ্ছা আমার গোবর দিয়ে তো সার বানালে উপকার হবে, আমি তাহলে ঘাস, খড় আর ভাতের মাড় খাই। " I’m like “Fuuuuck thaat, dude!”

গরু কংকাল দেয়, মাথার খুলি দেয়। মাথার খুলি দিয়ে এটা বানানো যায়ঃ

সেইইই না?

গরু খুর দেয়, শিং দেয়। এগলা দিয়ে কচুও তৈরি করা যায় না। কিন্তু মানুষ চিরুনি, বোতাম বানিয়ে দেখেছে। এবং আমার গল্প এটা নিয়েই। কেন? কে ভাববে একটা মাথার শিং দেখে, "আমার একটা বোতাম হলে খারাপ হয় না?" This is where কাঁঠাল comes in.

Fuuuckin’ কাঁঠাল! অসাধারণ একটা ফল। কি দেয় না কাঁঠাল? হলুদ মিষ্টি কোয়া, চাবি (যে কোয়ার আঁটি নেই), আঁটি, ফলের বাইরের শক্ত আবরণ/চামড়া। এরপর? শিশু কাঁঠাল / মুচি। তারপর? কাঁচা কাঁঠাল বা এঁচোড়। আর? কাঁঠাল পাতা। এবং? কাঁঠাল গাছের কাঠ। শেষে? কাঁঠালের শেকড় which you can take out to dinner and may/may not have sex with. (Not really. ফাইযলামি করলাম। শেকড় কোনও কাজে লাগে না জানতাম। কিন্তু সেদিন দেখেছি একটা টী টেবিলের পায়া বানিয়েছে। )

উপকারঃ

  1. হলুদ মিষ্টি কোয়াঃ খাবার (ফল),
  2. চাবিঃ খাবার (ফল),
  3. আঁটিঃ ভর্তা (ভাত),
  4. ফলের বাইরের শক্ত আবরণ/চামড়াঃ You are not gonna believe this, গোখাদ্য।
  5. শিশু কাঁঠাল/মুচিঃ টক ভর্তা (লবণ, মরিচগুঁড়ো)।
  6. কাঁচা কাঁঠাল বা এঁচোড়ঃ রান্না করলে মাংসের মত লাগে। (This is where I lost my shit!)
  7. কাঁঠাল পাতাঃ ছাগখাদ্য।
  8. কাঁঠাল গাছের কাঠঃ আমাদের ড্রেসিং টেবিল বানানো হয়েছে এগুলা দিয়ে।

(এর শেষ কোথায়? ইশতিয়াক বলছিল হিপ্পিদের কথা। He was right. আমরা গরু চাষ করতে তো পারব না। গরুর মত আচরণ করলে মানুষ অনেক দিন বাঁচত। বেশিদিন বাঁচবে না। কাঁঠালের চামড়া খেয়ে কি বাঁচা যায়? না। গায়ে দিলে বাঁচা যায়। #saveCows #saveJack)

P.S I was gonna write some more. But I got upset. Sorry. We are all gonna die a painful and lonely af death. I ate beef this morning. I realized I never appreciated what I had until someone said, “Write about Cows”. So I did. Unfinished.

P.P.S আমার একটা আশংকা মহিষ আসলে গরু। জানি না কতটা সত্য। মহিষ দেখলে আমার অনেক মায়া লাগে। এটা সত্য। কি ভীষণ শক্তিশালী প্রাণী! অথচ সরল আর চেহারা রাগী রাগী দেখে আজ তারা মহিষ, আমি মানুষ। মহিষের মাংস নাকি অনেক শক্ত। কি জানি! মহিষকে কাঁদতে দেখেছি। মাংস শক্ত বলে বোধ হয়।